কোহেকাফ নগরঃ স্বপ্নবিশ্ব (৪ - ৫)


৪: 
ডিভাইন এলায়েন্স ইনবিল্ট ড্রিম ইউনিভার্স! সংক্ষেপে দ্যা ড্রিম ইউনিভার্স। তবে গবেষক ও স্কলারদের কাছে এই পুর্নাঙ্গ নামের একটুখানি ডেভিয়েশন আছে, ডিভাইন এলায়েন্স ইমপ্লাইড ড্রিম ইউনিভার্স। অফিসিয়াল নাম, ডিভাইন এলায়েন্স অফ ড্রিম ইউনিভার্স। স্বপ্নবিশ্বের আকর্ষনীয় ও সমৃদ্ধ সাহিত্য এবং ইতিহাস কর্মগুলি থেকে তথ্য পাওয়া যায় যে অনেক অতীতে একদা স্বপ্ন ও পার্থিব একটি বিশ্বই ছিলো। ভিন্ন ভিন্ন কোন নাম এবং অবস্থান ছিলো না। যা ছিলো স্বপ্ন সেটাই পার্থিব এবং যা ছিলো পার্থিব সেটাই স্বপ্ন। মহাজ্ঞানী ইরশ প্রোর্ড ছিলেন অন্যতম ও সেরা গবেষক ও দার্শনিকদের একজন। ইরশ দীর্ঘদিন গবেষনা করে দুটি লেয়ারের অস্তিত্ব খুজে পেয়েছেন, তিনি তার নাম দেন স্বপ্ন ও পার্থিব এবং এসব নিয়ে বিস্তর গবেষনা ও লেখালেখি এবং ক্যাম্পেইন করে দ্বিজাতি ত্বত্ত নামে একটি থিওরির অবতারনা করেন। ফলশ্রুতিতে হাজার যুগের দীর্ঘ ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়ায় এই দুটি বিশ্ব পরস্পর থেকে সম্পুর্ন আলাদা হয়ে ভিন্ন ভিন্ন অবস্থানে চলে যায়। তবে একটি বিশ্ব যেন অপর বিশ্বের সাথে যোগাযোগ রাখতে পারে তিনি তেমন কিছু মেকানিজমেরও প্রস্তাবনা করে সেগুলিকে কার্যকরী করে তোলেন। আর সেসবের অন্যতম হচ্ছে অবসর, বিশ্রাম এবং জাগরন। স্বাপ্নিকরা অবসর কিংবা বিশ্রামকালীন সময়ে জাগরনের মাধ্যমে পার্থিব বিশ্ব ভ্রমন করে। 

জিনার উর্ধ্বতন এল আমিদ। জিনা তার সাথে কাজ করছে বেশ কয়েকমাস যাবত। জিনা তার কাছে জানতে চায় মনোজগত সম্পর্কে। হ্যা। এল আমিদ মনোজগতের অস্তিত্বের কথা স্বীকার করে নিয়েছেন। 
আচ্ছা আমিদ, আপনী কি আমাকে বলতে পারবেন কিভাবে মনোজগতে পৌছানো যাবে। কোথায় গেলে আর কিভাবে খুজে পাওয়া যাবে মনোজগত? জিনা অনেক আগ্রহ নিয়ে জানতে চায় তার উর্ধ্বতন এল আমিদের কাছে। 
এল আমিদ উত্তর দেয়, মনোজগতের কথা আমিও জেনেছি। মনোজগত নিয়ে অনেক পড়া, শোনা ও গবেষনা করেছি। কিন্তু এই মনোজগত এভাবে কেউ খুজে পেতে পারে না মাই ডিয়ার। কিংবা আমি নির্দিষ্ট করে বলতেও পারবোনা যে ঠিক কোথায় আছে মনোজগত। তবে মনোজগত নামে আরো একটি বিশ্ব আছে। 
অবসর, বিশ্রাম কিংবা জাগরনের মাধ্যমে কি মনোজগতে যাওয়া যায় মাননীয় এল আমিদ? অনেক শ্রদ্ধার স্বরে প্রশ্ন করে জিনা যেন তাকে যেভাবেই হোক মনোজগতের সন্ধান পেতে হবে। কারন সে অজানা কারনে বিশ্বাস করেছে যে সেখানে হয়তো সে তার জাগরনের নায়ক রিলেমকে স্থায়ীভাবে খুজে পাবে। 
এল আমিদ বলেন, অবসর, বিশ্রাম ও জাগরন এসবতো পার্থিব বিশ্ব ভ্রমনের উপায়। তবে মনোজগতে যাবারও একটি উপায় কিংবা মেকানিজমও নিশ্চয়ই আছে। 
উর্ধ্বতন এল আমিদের চেম্বারে দীর্ঘ সময় কাটায় জিনা। তার আরো বিশ্বাস হয়েছে, এল আমিদ তাকে মনোজগতে পৌছাতে সঠিক গাইডলাইন এবং পর্যাপ্ত সহযোগিতা ও পরামর্শ দিতে পারবে। 

৫: 
এল আমিদ চেম্বারে কমিউনিকেশন অফিসার হিসেবে জিনা অফিসিয়ালী যোগ দিয়েছে পাঁচ মাস আগে। স্বপ্নবিশ্বের রিপাবলিক দ্যুমাতে সর্বক্ষেত্রে প্রফেশনের কিছু স্থর আছে। জিনা একজন অফিসার, এল আমিদ হচ্ছেন ডিরেক্টর, তাছাড়া চেম্বারের একজন চেয়ারপার্সন আছেন এবং আরো আছে একাধিক এডভাইজার। জিনার সাথে এল আমিদ পরামর্শ করে চেম্বার ডেভলপমেন্টের বিষয়ে। তিনি ভাবছেন একজন কনসালটেন্ট এবং একজন কমিশনার নিয়োগ দেওয়ার বিষয়ে। এল আমিদ বলেন, তোমরা যারা প্রফেশনে নতুন যোগ দিয়েছো তাদের ভালভাবে কর্মক্ষেত্রগুলি বুঝতে হবে এবং পরিস্কার ধারনা থাকতে হবে আর এটা হচ্ছে একজন ভাল প্রফেশনাল হয়ে উঠবার প্রাথমিক ধাপ। 
এল আমিদ বললেন, শোনো মেয়ে, তোমার মতো নিউএন্ট্রি একজন অফিসারও এডভাইজার কিংবা কনসালটেন্ট হিসাবে কাজ করতে পারে তবে সেজন্য পার্টিক্যুলারলি বিষয় ভিত্তিক যথেষ্ট জ্ঞান ও দক্ষতা থাকতে হয়। এডমিন্সিট্রেটিভ, সেক্রেটারিয়েট কিংবা প্রকল্প ভিত্তিক কাজগুলিতে একজন কমিউনিকেশন অফিসারের অনেক গুরুত্ব রয়েছে। কোঅর্ডিনেশনের ক্ষেত্রে একজন কমিউনিকেশন অফিসার অনেক সফল ও ফলপ্রসু ভুমিকা রাখতে পারে। ড্রিম ইউনিভার্সে যারা মনোঐতিহাসিক সেক্টরে কাজ করে থাকে তাদের একটা ইউনাইটেড স্টেটেস আছে সাইকোহিস্ট্রি স্টেটেস ফেডারেশন। এল আমিদ চেম্বার সাইকোহিস্ট্রি নিয়ে কোন কাজ করে নি তবে তুমি চাইলে আমরা একজন সাইকোহিস্ট্রিয়ানকে এডভাইজার হিসেবে নিয়োগ দিয়ে ঐ জাতীয় প্রকল্পে অন্তর্ভুক্তি নিয়ে তাদের ইউনাইটেড স্টেটেসটির সদস্য হতে পারি। 
জিনা প্রশ্ন করে সাইকোহিস্ট্রি কি মনোজগতের কোন অংশ? 
এল আমিদ বললেন, না, তবে এর মাধ্যমে তুমি হয়তো মনোজগতকে আরো ভালভাবে বুঝতে পারবে। যেমন ধরো গনিতের এমন কিছু শাখা কিংবা এমন কিছু গনিত আছে যার কর্মক্ষেত্রে কোন প্রয়োগ নেই কিন্তু ঐসব গনিত স্টাডি অন্য আরো কিছুকে বুঝতে ও গভীরে দৃষ্টিপাতে সহায়তা করে। সাইকোহিস্ট্রি হচ্ছে তেমন একটি মাধ্যম, প্রকল্প এবং ধারনা যা স্বপ্নবিশ্বকে আরো ভালভাবে বুঝতে ও পরিচালনা করতে সহায়তা করতে পারে। 

ডন আইজ্যাক! সাইকোহিস্ট্রিয়ান। সাইকোহিস্ট্রি স্টেটেস ফেডারেশনের লর্ড সাইকোহিস্ট্রিয়ান হিসেবে দায়িত্বরত আছেন অনেক বছর যাবত। কমিউনিকেশন চেয়ারপার্সন হিসেবে তিনি স্টেটেসে প্রথম যোগ দিয়েছিলেন। এল আমিদ চেম্বার কোন সাইকোহিস্ট্রি প্রকল্পে যোগ দেয় নি তবে জিনার সাক্ষাত হয় সাইকোহিস্ট্রি স্টেটেস ফেডারেশনের লর্ডের সাথে। সেলিব্রেটি জার্নাল এর সাংবাদিক হিসেবে জিনা সাক্ষাত করে ডন আইজ্যাকের সাথে। 

জিনা ক্ষুদে একটি সাক্ষাতকার নিতে সক্ষম হয়। তার কিছু গুরুত্বপুর্ন তথ্য এমন:-  
প্রশ্ন: সেলিব্রেটি জার্নালের কাছে তথ্য আছে যে সাইকোহিস্ট্রি একটি নিষিদ্ধ বিজ্ঞান? 
উত্তর: সাইকোহিস্ট্রি গনিতের একটি বিশেষ শাখা এবং সাইকোহিস্ট্রি নিজেই একটি বিজ্ঞান। সাইকোহিস্ট্রিকে বলা হয় এঞ্জেলিক সায়েন্স এবং এটা অনেক উচ্চমাত্রার একটি বিজ্ঞান যা এখনো সাধারন স্বাপ্নিকদের মাঝে পৌছায় নি। 
প্রশ্ন: তাহলে কেন আপনারা সাইকোহিস্ট্রিকে সাধারনদের জন্য উন্মুক্ত করছেন না? 
উত্তর: শুধু ড্রিম ইউনিভার্সের সাধারনদের মধ্যে নয় স্টেটেস চায় সাইকোহিস্ট্রিকে স্বপ্নবিশ্ব থেকে পার্থিব বিশ্বে নিয়ে যেতে, কমনওয়েলথে, এম্পায়ারে, কোহেকাফ নগরে এবং সর্বত্র। কিন্তু এই বিজ্ঞান এখনো ম্যাসিভ লেভেলে প্রবেশ করা কিংবা বোধগম্যের অবস্থায় পৌছায় নি। 
প্রশ্ন: তবে আপনাদের স্টেটেস কেন সাইকোহিস্ট্রিকে সবার বোধগম্য করে দিচ্ছে না? 
উত্তর: আমরা চেষ্টা করছি গতানুগতি গনিতের শাখাগুলির মধ্যদিয়ে সাইকোহিস্ট্রিকে প্রকাশ করবার যেন সবাই বুঝতে পারে। এবং সাইকোহিস্ট্রি সায়েন্সকে ক্লাসিক কিংবা কোয়ান্টাম পর্যায়ে নিয়ে আসতে যেন সবার কাছে বোধগম্য হয়ে ওঠে এবং তখন আমরা সাইকোহিস্ট্রিকে ড্রিম ইউনিভার্স থেকে অন্যসব ইউনিভার্সে প্রেরন করতে পারবো। 
প্রশ্ন: কিন্তু আমরা বুঝতে পারছি না আপনী কেন বারবার সাইকোহিস্ট্রিকে অন্যান্য বিশ্বে প্রেরনের কথা বলছেন এবং অগ্রারিকারমুলকভাবে গুরুত্ব দিচ্ছেন? 
উত্তর: কারন সাইকোহিস্ট্রি যখন অধিক সংখ্যক বিশ্বে ও সাধারনদের কাছে পৌছাবে তখন এটা নিয়ে স্টাডি ও গবেষনা এবং প্রকাশনার পরিমানও বাড়বে আর এভাবে আরো সমৃদ্ধ হয়ে উঠবে সাইকোহিস্ট্রি। 
প্রশ্ন: কিন্তু স্টেটেসের যেসব প্রকাশনা আছে তাতে শুধু আপনাদের গুনগান আর গল্প-ইতিহাসে ভরপুর কিন্তু প্রকৃত পক্ষে যেটা নিয়ে এতো আয়োজন এতো বড় ইউনাইটেড স্টেটেস -  সাইকোহিস্ট্রি স্টেটেস ফেডারেশন, সেই সাইকোহিস্ট্রি গনিত কিংবা বিজ্ঞানের কোন তথ্য কিংবা গনিত নেই! কেন? 
উত্তর: সাইকোহিস্ট্রি এখনো এমন পর্যায়ে পৌছায়নি যা কিছু সাধারনের বোধগম্য হতে পারে। সাইকোহিস্ট্রি ধারনা যতটুকুই বিস্তার লাভ করেছে তা শুধু স্বপ্নবিশ্বেই সীমাবদ্ধ রয়েছে এখনো। 

{চলবে} .........

“কোহেকাফ নগর ডিভাইন এলায়েন্স সিরিজ” লেখকঃ ড. রাইখ হাতাশি।
“AudaCity Divine Alliance Series” by Dr. Raych Hatashe 

Comments